২৭টি বাহিনীর ২৮৪ জন জলদস্যুর মাঝে র‌্যাবের ঈদ উপহার

মনির হোসেন,মোংলাঃ
সুন্দরবনে দস্যুতা ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা ২৭টি বাহিনীর ২৮৪ জন জলদস্যুর মাঝে র‌্যাপিড এ্যাকশান ব্যাটালিয়ন র‌্যাব- ৮ এর পক্ষ থেকে ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়েছে।

রবিবার (১৮ জুলাই) সকাল ১১ টায় মোংলা বন্দরের পিকনিক কর্ণারে র‌্যাবের পক্ষ থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা জলদস্যুদের হাতে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ,সেমাই, চিনি, সয়াবিন তেল।
ঈদ উপহার বিতরণকালে র‌্যাব- ৮ এর উপ- অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ মিজানুর রহমান ও সিপিএসপি কোম্পানী অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমসহ এ বাহিনীর অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

‌র‌্যাব- ৮ সুত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত ঘোষনা করেন। সুন্দরবনে এখন বইছে শান্তির সু-বাতাস। অপহরণ হত্যা এখন তিরোহিত। জেলেদের কষ্টার্জিত ভাগও কাউকে দিতে হচ্ছেনা। মাওয়ালী, বাওয়ালী, বনজীবী, বণ্যপ্রাণী এখন সবাই নিরাপদ। নির্ভয়ে নির্ভিঘ্নে আসছে দর্শনার্থী পর্যবেক্ষক ও জাহাজ বণিকেরা। এভাবেই সরকারের দূর্দশিতায় সুন্দরবন কেন্দ্রিক অর্থনৈতিক গতিশীলতায় ব্যাপক সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনা, পৃষ্ঠপোষকতা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্বাবধানে এবং র‌্যাবের সংক্রিয় অংশগ্রহণে সুন্দরবন আজ দস্যুমুক্ত।

সুন্দরবন এবং পার্শ্ববর্তী এলাকায় র‌্যাবের বহুমূখী তৎপরতায় ২০১৬ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ২৭টি বাহিনীর ২৮৪ জন জলদস্যুর আত্মসমর্পণ করলে সরকার তাদেরকে কর্মসংস্থান থেকে শুরু করে স্বাভাবিক জীবন যাপনে বসবাস করার এবং তাদের মামলা প্রত্যাহারে সাহায্য সহযোগীতা করে যাচ্ছে।

মাননীয় মহাপরিচালকের নির্দেশে, মোংলা, বাগেরহাট সদর, সাতক্ষীরা এবং খুলনার বিভিন্ন জায়গাতে মোট ২৮৪ টি পরিবারের মধ্যে ঈদ শুভেচ্ছা সামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি জলদস্যুদের সার্বিকভাবে সহায়তা করে যাচ্ছে ।
র‌্যাবের উপ- অধিনায়ক সাংবাদিকদের জানান, সুন্দরবনকে একটি নিরাপদ পর্যটন কেন্দ্র ও সুন্দরবনের পারিপার্শ্বিক এলাকাকে একটি নিরাপদ আবাসস্থল এ পরিনত করার জন্য এবং ২৮৪ টি পরিবারকে একটি সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে ফেরত আনার জন্য সরকারের নির্দেশক্রমে ও ডিপার্টমেন্টের নির্দেশক্রমে তাঁরা এই কাজ করে যাচ্ছেন।

Top
ঘোষনাঃ