জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের


জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের একমাত্র টেস্টে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

ইনজুরির কারণে শেষ পর্যন্ত দলে রাখা হয়নি তামিম ইকবালকে। তবে একাদশে আছেন মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ।

আট বছর পর জিম্বাবুয়ের কন্ডিশনে স্বাগতিকদের বিপক্ষে সাদা পোষাকের ক্রিকেটে ভাল করার চ্যালেঞ্জ টাইগারদের। দুই পেসার তাসকিন, এবাদতের সাথে স্পিনে হাত ঘোরাবেন স্বীকৃত স্পিনার সাকিব, মিরাজ ।

আট বছর পর জিম্বাবুয়ের কন্ডিশনে ভাল করার চ্যালেঞ্জ। ওপেনার তামিমকে একাদশে পাওয়া যাবে না। যদিও সাকিব-মুশফিকের সাথে দেড় বছর পর দলে ফিরেছেন পারেন রিয়াদ। গেলে দুই বছরে সাদা পোশাকে টানা ব্যর্থতা থেকে বের হতে চায় বাংলাদেশ। অন্যদিকে, ঘরের মাঠে সাত বছরের জয় খরা কাটাতে মরিয়া স্বাগতিকরা।

বছরের হিসাবে দীর্ঘ আট বছর, এ-সময়ে বদলে গেলে অনেক কিছু। বদল এসেছে দুই দলে। তবে চিত্রটা সেই একই রয়ে গেছে। কোন দলই টেস্টে পায়ের নিচে মাটি শক্ত করতে পারেনি। হতে পারেনি নিয়মিত।

বাংলাদেশের কাছে জিম্বাবুয়ে শক্ত কোন প্রতিপক্ষ নয়। তাই বলে, নির্ভার থাকার উপায় নেই। ব্যাটিংয়ে ধৈর্য্যের অভাব, বোলিংয়ে লাইন-লেন্থ ধরে রাখতে না পারা, তার উপর ক্যাচ মিস করা। জিম্বাবুয়ের চেয়ে বড় প্রতিপক্ষ তো নিজেরাই। প্রতি সিরিজের মতো এবারও ভাল কিছুর আশা দেখাচ্ছেন মুমিনুল।

একাদশ নিয়ে ভাবতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। তামিম থাকছেন না নিশ্চিত। মুশফিককে নিয়ে শঙ্কা কেটে গেছে। যদিও কোন কিছুই পরিস্কার করে বলতে চাইলেন না টাইগার অধিনায়ক। তামিমের অভিজ্ঞতার অভাব পুরণে মাহমুদুল্লাহ সুযোগ পেয়েছেন।

ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে সব শেষ জয় পেয়েছে সাত বছর আগে, পাকিস্তানের বিপক্ষে। তার বছরখানে আগে বাংলাদেশ সফর করেছে সেখানে। টাইগারদের বিপক্ষেও সেবার জয় পেয়েছিলন টেলরের দল। এরপর একটা করে বছর গেছে, গেছে সিরিজ। আট বছর আর ১১ টেস্টে জয় নেই। শন উইলিয়ামস, ক্রেক আরভিন করোনা আক্রন্ত পরিবারের সদস্যদের সাথে সাক্ষাৎ করায় খেলতে পারবেন না। তাতে বিপদ বেড়েছে স্বাগতিকদের।

Top
ঘোষনাঃ